শিরোনাম :
কোটা আন্দোলন : কক্সবাজারে আওয়ামীলীগ, জাসদ, জাতীয় পার্টির কার্যালয়, মসজিদ, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও গাড়ি ভাংচুর; ছাত্রলীগ ৪ নেতাকে মারধর কক্সবাজারে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের বিক্ষোভ মিছিল চট্টগ্রামে কোটা আন্দোলনে সংর্ঘষে নিহত ছাত্র আকরামের বাড়ী কক্সবাজারের পেকুয়ায় পেকুয়ায় দূর্যোগ প্রস্তুতি ও সাড়াদান বিষয়ক কর্মশালা ক্রিস্টাল মেথ আইস উদ্ধার পর্যটন শহরেও উত্তাপ ছড়ালো কোটা আন্দোলনকারীরা উল্টো রথযাত্রা মহোৎসব ১৫ জুলাই টেকনাফে জেন্ডার ও বিরোধ সংবেদনশীল সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ মিয়ানমারের বিকট শব্দে আতংকে টেকনাফবাসী টেকনাফে ক্যান্সার রোগীর চিকিৎসার জন্য আর্থিক সাহায্যের আবেদন

উত্তমের খোঁজ নেই ১০ বছরেও

নিউজ রুম / ৫ বার পড়ছে
আপলোড : বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ০৮:০০ অপরাহ্ন

উত্তমের খোঁজ নেই ১০ বছরেও
বিডি প্রতিবেদক রামু ।
ঘটনার ১০ বছর অতিবাহিত হওয়ার পরও কোনভাবে খোঁজ মিলছে না সেই উত্তম বড়ুয়ার। অথচ এ উত্তম বড়ুয়ার ফেইস বুকে শেয়ার করা হয়েছিল একটি বির্তকিত ছবি। ওই ছবির কারণে পবিত্র কোরআন শরীফ অবমাননার অভিযোগে সংঘটিত হয় রামুর তান্ডব। উত্তম বড়ুয়া কোথায় এটা যেমন জানেন না তার স্ত্রী সহ অন্যান্যরা। তেমনি জানেন না পুলিশও। তবে উত্তম রামুর ঘটনায় দায়ের করা একটি মামলার প্রধান আসামী। ২০১২ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর রামুতে সংঘটিত ঘটনার পর থেকে এ উত্তম নিখোঁজ থাকার কারণে চরম ভোগান্তিতে রয়েছেন তার স্ত্রী রিতা বড়ুয়া।
তিনি জানিয়েছেন, তার ছেলে আদিত্য বড়ুয়াকে নিয়ে তিনি চরম অসহায় দিন যাপন করছেন। ঘটনার পর থেকে স্বামী সম্পর্কে তিনি কিছুই জানেন না।
জানা যায়, উত্তম বড়ুয়া রামু সদরের চেরাংঘাটা গ্রামের সুদত্ত বড়ুয়ার ছেলে। তিনি রামু সাব রেজিস্ট্রি অফিসে দলিল লেখক ছিলেন। তার স্ত্রী রিতা বড়ুয়া ও ছেলে আদিত্য বড়ুয়া বর্তমানে নিজ পিতার বাড়িতে থাকেন।
উত্তমের শাশুড়ি বাসু বড়ুয়া জানিয়েছেন, মেয়ে এবং নাতিকে নিয়ে ভোগান্তিতে রয়েছেন। তিনি উত্তমকে যেকোনভাবে ফেরত আনার দাবি জানিয়েছেন।
উত্তমের সামাজিক নিরাপত্তা ও তার সন্তানের জন্য মানবিক সহায়তা চেয়েছেন বাংলাদেশ বৌদ্ধ সমিতি (যুব) এর সভাপতি সুরেশ বড়ুয়া। তিনি জানান, উত্তমকে ফেরত আনা জরুরী।
উত্তমের বাবা সুদত্ত বড়ুয়া বলেন,আমরা এখনো ছেলের অপেক্ষায় রয়েছি।
রামু রাইটাস ক্লাবের উপদেষ্টা দর্পন বড়ুয়া জানান, সামাজিকভাবে উত্তম এর পরিবারকে বেঁচে রাখা জরুরী। ঘটনার জন্য উত্তম দায়ী না দায়ী নন এটার বিচার করবে আদালত। তবে অবুঝ সন্তানটি জেনে বেঁচে থাকেন।
আর উত্তমের ছেলে আদিত্যকে তার পিতা কোথায় জানতে চাওয়া হলে সে এতটুকুই কেবল বলেছে ‘বাবাকে পুলিশ ধরে নিয়ে গেছে।’
কিন্তু পুলিশ জানেন না উত্তম কোথায়।


আরো বিভিন্ন বিভাগের খবর