শিরোনাম :
কোটা আন্দোলন : কক্সবাজারে আওয়ামীলীগ, জাসদ, জাতীয় পার্টির কার্যালয়, মসজিদ, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও গাড়ি ভাংচুর; ছাত্রলীগ ৪ নেতাকে মারধর কক্সবাজারে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের বিক্ষোভ মিছিল চট্টগ্রামে কোটা আন্দোলনে সংর্ঘষে নিহত ছাত্র আকরামের বাড়ী কক্সবাজারের পেকুয়ায় পেকুয়ায় দূর্যোগ প্রস্তুতি ও সাড়াদান বিষয়ক কর্মশালা ক্রিস্টাল মেথ আইস উদ্ধার পর্যটন শহরেও উত্তাপ ছড়ালো কোটা আন্দোলনকারীরা উল্টো রথযাত্রা মহোৎসব ১৫ জুলাই টেকনাফে জেন্ডার ও বিরোধ সংবেদনশীল সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ মিয়ানমারের বিকট শব্দে আতংকে টেকনাফবাসী টেকনাফে ক্যান্সার রোগীর চিকিৎসার জন্য আর্থিক সাহায্যের আবেদন

রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী নবী হোসেন গ্রুপের ৫ সদস্য অস্ত্র ৪ লাখ পিস ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার

নিউজ রুম / ৪ বার পড়ছে
আপলোড : বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ১১:০৪ অপরাহ্ন

বিডি প্রতিবেদক :
কক্সবাজারে র্যাব বিশেষ অভিযান চালিয়ে
মিয়ানমারের রাখাইন ষ্টেটের আলোচিত রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী নবী হোসেন গ্রুপের ৫ সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে। এসময় তাদের কাছ থেকে ৪ লাখ ১০ হাজার পিস ইয়াবা ও একটি বিদেশি একে ২২ রাইফেল, একটি বিদেশি পিস্তল, একটি এসবিবিএল এবং ১৭ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- আব্দুল্লাহ রাজ্জাক ওরফে রাজ্জাক মাঝি, ইলিয়াছ, সাহেদ, মো. আয়াছ ওরফে আজিজুল ও সাইফুল ইসলাম।
এরমধ্যে রাজ্জাক মাঝি ও আজিজুল হক রোহিঙ্গা। বাকি ৩ জন বাংলাদেশের নাগরিক।
শনিবার (২৭আগস্ট) দুপুরে র‍্যাব-১৫ এর কক্সবাজার সদর দপ্তরে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল খায়রুল ইসলাম সরকার।

ব্রিফিংয়ে খায়রুল ইসলাম সরকার জানান, কক্সবাজারের উখিয়ার মিয়ানমার সীমান্তবর্তী এলাকায় আলোচিত রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী নবী হোসাইন সাধারণ মানুষকে বন্ধক রেখে ও কিস্তিতে ইয়াবা সরবরাহ করতো। সময়মত যদি টাকা আদায় করতে না পারতো তাহলে বন্ধক রাখা ব্যাক্তিকে নির্যাতন ও হত্যা করা হত। এরকমই মানুষ বন্ধক রেখে নির্যাতনের একটি ভিডিও র্যাবের হাতে আসে। এই নবী হোসাইন সিন্ডিকেট উখিয়া -টেকনাফের ক্যাম্প এলাকায় ইয়াবা পাচার ও বিভিন্ন অপরাধকর্মকান্ড করতো। এক সময় সরকারি একটি সংস্থা (বিজিবি) নবী হোসেনকে ধরিয়ে দিতে পুরষ্কার ঘোষণা করেন। এর পর থেকে র‌্যাবের গোয়েন্দা সংস্থা তাদের সিন্ডিকেট ধরতে কাজ করা শুরু করে। পরে নবী হোসেন গ্রুপের হাতে নির্যাতিদের সাথে কথা বলে র্যাবের গোয়েন্দা নজরদারি বাড়ানো হয়। পরে সর্বশেষ মায়ানমার থেকে ইয়াবার বড় একটি চালান বাংলাদেশে প্রবেশের তথ্যের ভিত্তিতে র্যাবের একটি টিম গতকাল শুক্রবার রাতে উখিয়া উপজেলার বালুখালী সীমান্ত এলাকায় অভিযান চালিয়ে নবী হোসেন গ্রুপের ৫ সদস্যকে গ্রেপ্তার করে। এসময় তাদের কাছ থেকে ৪ লাখ ১০ হাজার পিস ইয়াবা ও একটি বিদেশি একে ২২ রাইফেল, একটি বিদেশি পিস্তল, একটি এসবিবিএল এবং ১৭ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে আটক রাজ্জাক মাঝি র্যাবকে জানায় মিয়ানমারের নাগরিক নবী হোসেন একটি বিশাল সিন্ডিকেট গঠন করে উখিয়া সীমান্ত সীমান্তের কাছে মিয়ানমারে বসবাস করে বাংলাদেশে মাদক পাচার করে থাকে। প্রতিমাসে তারা বিপুল পরিমাণ ইয়াবা বাংলাদেশে ইয়াবা কারবারিদের সরবরাহ করে। এই সিন্ডিকেট বাংলাদেশে ইয়াবা পাচার করতে গিয়ে মানুষ বন্ধক রেখে টাকা আদায় করে।
তিনি জানান সীমান্তে অভিযান চলাকালে মূলহোতা নবী হোসেনকে আটক করা সম্ভব হয়নি। আটককৃদের আইনি ব্যাবস্থা প্রক্রিয়াধীন।


আরো বিভিন্ন বিভাগের খবর