শিরোনাম :
কোটা আন্দোলন : কক্সবাজারে আওয়ামীলীগ, জাসদ, জাতীয় পার্টির কার্যালয়, মসজিদ, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও গাড়ি ভাংচুর; ছাত্রলীগ ৪ নেতাকে মারধর কক্সবাজারে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের বিক্ষোভ মিছিল চট্টগ্রামে কোটা আন্দোলনে সংর্ঘষে নিহত ছাত্র আকরামের বাড়ী কক্সবাজারের পেকুয়ায় পেকুয়ায় দূর্যোগ প্রস্তুতি ও সাড়াদান বিষয়ক কর্মশালা ক্রিস্টাল মেথ আইস উদ্ধার পর্যটন শহরেও উত্তাপ ছড়ালো কোটা আন্দোলনকারীরা উল্টো রথযাত্রা মহোৎসব ১৫ জুলাই টেকনাফে জেন্ডার ও বিরোধ সংবেদনশীল সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ মিয়ানমারের বিকট শব্দে আতংকে টেকনাফবাসী টেকনাফে ক্যান্সার রোগীর চিকিৎসার জন্য আর্থিক সাহায্যের আবেদন

চাচিকে কুপিয়ে আহত: আটক ভাতিজা

নিউজ রুম / ৪ বার পড়ছে
আপলোড : বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ১০:২১ অপরাহ্ন

দেওয়ান ফরিদ :
চাচার পান বরজ থেকে ভাতিজা কর্তৃক পান চুরির ঘটনায় বিচার চাওয়ায় ক্ষুব্ধ ভাতিজা চাচা চাচিসহ পরিবারের সবাইকে খুন করার উদ্দেশ্যে পরিকল্পিতভাবে হামলা চালিয়ে দাড়ালো রাম দা দিয়ে চাচির শরীরে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ২০/২২ টি কোপ দিয়ে মা ছেলে দু’জনকে হত্যার চেষ্টা চালিয়ে। পুরো শরীরে তন্ন তন্ন করে কোপের আঘাত নিয়ে মা ছেলে দু’জন এখন চমেক হাসপাতালের আইসিইউ তে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। এমন নৃশংস লোমহর্ষক ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল ১৪ অক্টোবর মহেশখালী উপজেলার হোয়ানক ইউনিয়নের পূর্ব কাঠালতলী পাড়া গ্রামে। আহত চাচির নাম হাসিনা বেগম (৩৮) এবং তার ছেলে মোফাচ্ছেল (১১)। ঘাতক ভাতিজা রিদোয়ান (২৪) কে পুলিশ ও জনতা গতকাল বিকেলে যৌথ অভিযান চালিয়ে পার্শ্ববর্তী ইউনিয়ন বড় মহেশখালীর ফকিরা ঘোনা থেকে গ্রেফতার করেছে।
এলাকাবাসী ও আহত হাসিনা বেগমের স্বামী মোজাফফর আহমদ জানান, গত চার মাস পূর্বে তার চাচাতো ভাই আবুল কালামের পুত্র রিদওয়ান অন্যান্য সহযোগী নিয়ে তার পান বরজ থেকে পান চুরি করে। এ ঘটনায় স্থানীয় ইউপি মেম্বার মোঃ আনোয়ারের কাছে বিচার দিয়ে সে ক্ষুব্ধ হয়ে প্রতিশোধের স্পৃহা নিয়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাতটায় ধারালো দা নিয়ে আমিও আমার স্ত্রী পুত্রকে খুন করার ঘোষণা দিয়ে ঘোরাফেরা করতে থাকে। এ সময় আমি আত্মরক্ষার্থে বাজারে থেকে আমার স্ত্রীকে ফোন করে সতর্ক থাকার কথা বলাকালীন ঘাতক ভাতিজা রিদওয়ান আমার গোয়াল ঘরে ওৎপেতে থাকা হতে অতর্কিত হামলা চালিয়ে আমার স্ত্রীকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায়। এ সময় সে আমার ১১ বছরের ছেলে মোফাচ্ছেলকেও কুপিয়ে আহত করে আহত করে পালিয়ে যায়। বর্তমানে আমার স্ত্রী মরণাপন্ন অবস্থায় সমেত হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
এলাকাবাসীর অপর একটি সূত্র জানান, ঘাতক রিদোয়ান ইতিমধ্যে মানসিকভাবে বিকারগ্রস্ত হয়ে তাহাকে জাদু মন্ত্র করেছে মর্মে জনৈক বৈদ্যের কথায় উগ্র মেজাজে এ ঘটনা ঘটিয়েছে। তার ভয়ে পুরোগ্রামবাসি আতঙ্কিত রয়েছে।
ইউপি মেম্বার আনোয়ার বলেন, ঘাতক ভাতিজা রিদওয়ান তার দলবল নিয়ে এলাকায় চুরি ডাকাতি করে। পান চুরির বিষয়ে তাকে বিচার দিলেও সন্ত্রাসী রিদোয়ান বিচারে আসেনি। সে দুধর্ষ ও হিংস্র লোক। সে প্রকাশ্যে ৪/৫ জন কে খুন করার ঘোষণা দিয়ে হামলা চালিয়েছে। গ্রামবাসী তাকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে।
মহেশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ প্রণব চৌধুরী জানান, ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ পাঠিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করা হয়েছে। গতকাল বিকেলে বড় মহেশখালী থেকে ঘাতক রিদওয়ান কে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা রুজুর প্রকৃয়া চলছে।


আরো বিভিন্ন বিভাগের খবর