শিরোনাম :
কোটা আন্দোলন : কক্সবাজারে আওয়ামীলীগ, জাসদ, জাতীয় পার্টির কার্যালয়, মসজিদ, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও গাড়ি ভাংচুর; ছাত্রলীগ ৪ নেতাকে মারধর কক্সবাজারে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের বিক্ষোভ মিছিল চট্টগ্রামে কোটা আন্দোলনে সংর্ঘষে নিহত ছাত্র আকরামের বাড়ী কক্সবাজারের পেকুয়ায় পেকুয়ায় দূর্যোগ প্রস্তুতি ও সাড়াদান বিষয়ক কর্মশালা ক্রিস্টাল মেথ আইস উদ্ধার পর্যটন শহরেও উত্তাপ ছড়ালো কোটা আন্দোলনকারীরা উল্টো রথযাত্রা মহোৎসব ১৫ জুলাই টেকনাফে জেন্ডার ও বিরোধ সংবেদনশীল সাংবাদিকতা প্রশিক্ষণ মিয়ানমারের বিকট শব্দে আতংকে টেকনাফবাসী টেকনাফে ক্যান্সার রোগীর চিকিৎসার জন্য আর্থিক সাহায্যের আবেদন

সৈকতে আবারও ভেসে এলো জেলিফিশ

নিউজ রুম / ৩ বার পড়ছে
আপলোড : বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ০৯:৫৭ অপরাহ্ন

বিডি প্রতিবেদক :
কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে আবারও ভেসে এসেছে অসংখ্য জেলিফিশ। শুক্রবার ভোরে সমুদ্র সৈকতের কলাতলীর পয়েন্টের উত্তরপাশে এসব জেলিফিশ ভেসে এসে তীরে আটকে যায়। খবর পেয়ে মৃত জেলিফিশের নমুমা সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বিওআরআই) মহাপরিচালক সমুদ্র বিজ্ঞানী সাঈদ মাহমুদ বেলাল হায়দারের নেতৃত্বে একটি টিম।
বিকেলে জোয়ারের পানিতে জেলিফিশ গুলো আবারো ভেসে গেছে। তবে ভাটার সাথে সাথে আবারো দেখা যেতে পারে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।
স্থানীয় জেলে নুরুল আবছার জানান, প্রায় সময় জেলেদের জালে আটকে পড়ে মারা যায় জেলিফিশ। জেলেদের ফেলে দেয়া মৃত জেলিফিশ ভাসতে ভাসতে সৈকতে চলে আসে।
জেলেদর মতে, নুইন্না (জেলিফিশকে স্থানীয়দের ভাষায়) আমাদের কোন কাজে আসেনা, বরং অনেক নুইন্না গায়ে লাগলে চুলকায়। নরম প্রজাতির হওয়ায় মাছটি দ্রুত মরেও যায়।
এদিকে, সকালে জেলিফিশের নমুমা সংগ্রহ করা বাংলাদেশ সমুদ্র গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক সমুদ্র বিজ্ঞানী সাঈদ মাহমুদ বেলাল হায়দার জানান, কক্সবাজার সমুদ্রের জেলিফিশের প্রজন্ম বেশি। কিন্তু জেলেদের কাছে এ মাছের কোন গুরুত্ব না থাকায় মেরে ফেলেন। মরে যাওয়া মাছগুলো কূলে ভেসে আসে। ভেসে আসা জেলিফিশে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই।
তিনি আরো জানান, লোবোনিমুইডিস রোবোস্টাস বা স্থানীয় ভাষায় সাদা নুইন্না প্রজাতির এই জেলিফিশের সংস্পর্শে গেলে কোন ধরণের ক্ষতি হয়না। বরং প্রক্রিয়া করা গেলে খাদ্য হিসেবে বেশ উপযোগী জেলিফিশ। এটি নিয়ে গেবেষণা চলেছে।
উল্লেখ্য, গেল ৩ ও ৪ আগস্ট কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে বিপুল সংখ্যক জেলিফিশ ভেসে এসেছিল। তারও নমুনা সংগ্রহ করে গবেষণা করে বিওআরআই’র সমুদ্র বিজ্ঞানীরা।


আরো বিভিন্ন বিভাগের খবর